• শুক্র. মার্চ ৫, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

কাজিপুরে যমুনার পানিবৃদ্ধিতে তলিয়ে গেছে হাজারো কৃষকের স্বপ্ন

Byঅনুসন্ধান বার্তা

সেপ্টে ২০, ২০২০
0 0
Read Time:3 Minute, 10 Second

আবদুল জলিল, অনুসন্ধান বার্তা :
সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে আবারও যমুনার পানিবৃদ্ধিতে নতুন করে তলিয়ে গেছে প্রায় ৯ হাজার কৃষকের স্বপ্ন। সিরাজগঞ্জ পাউবো’র তথ্যমতে গত ২৪ ঘন্টায় উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও বর্ষণে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার ৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

কাজিপুর উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক দিনের বন্যার পানিতে কাজিপুরে শুভগাছা, কাজিপুর, মাইজবাড়ি, খাসরাজবাড়ি, চরগিরিশ, তেকানী নাটুয়ারপাড়া, নিশ্চিন্তপুর, মনসুর নগর ও গান্ধাইল ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের উফশী ও স্থানীয় জাতের রোপা আমন ধান, মাসকলাই, মরিচ ও সবজি খেত পানিতে তলিয়ে গেছে।

এ পর্যন্ত (২০ সেপ্টেম্বর) ২০০ হেক্টর জমির উফসী জাতের রোপা আমন ধান তলিয়ে গেছে। এতে ক্ষতি হয়েছে ১ হাজার ৬০০ কৃষকের। স্থানীয় জাতের আমন ধান ডুবে গেছে ৮২০ হেক্টর। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৬ হাজার ৪৪০ জন কৃষক। মাসকলাই ক্ষেত ডুবে গেছে ৫০ হেক্টর। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের সংখ্যা ৪০০ জন। মরিচের ক্ষেত ডুবেছে ২০ হেক্টর। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের সংখ্যা ৩৩০ জন। আর সবজি ও অন্যান্য ক্ষেত তলিয়েছে আরও ৪০ হেক্টর।

এর আগে জুলাই মাসের দুই দফা বন্যায় প্রথম সপ্তাহে আউশ ৬১০ হেক্টর, রোপা আমন বীজতলা ৩৫০ হেক্টর, ২২ জুলাই এর তৃতীয় সপ্তাহে রোপা আউশ ৬১০ হেক্টর, রোপা আমন ৪৭০ হেক্টর এবং সর্বশেষ আগস্টের প্রথম সপ্তাহে রোপা আউশ ৬১০হেক্টর ও ৪৭৫ হেক্টর জমির রোপা আমন ফসলের ক্ষতি হয়েছে।

উপজেলার মনসুর নগর চরের কৃষক আজিজার ও চাঁন মিয়া জানান, মনে করেছিলাম আর বান আইসবো না। এহন দেহি খেতের মইধ্যে শুধু পানি আর পানি। ধানগাছ আর চোখে পড়ে না।

নিশ্চিন্তপুর চরের মচির চাষী রেজাউল করিম জানান, বাড়ির পাশে বানের পানি নেমে গেলে তিন বিঘা মরিচের আবাদ করছিলাম। গাছও গজিয়েছিলো এহন সব গ্যালো।

কাজিপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, আবহাওয়ার হিসেব অনুযায়ী পানি আর বেশি বাড়বে না। দ্রুত পানি নেমে গেলে কিছু ধান টিকে থাকবে। ক্ষয়-ক্ষতির হিসেব জেলা অফিসে পাঠানো হয়েছে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!