• মঙ্গল. এপ্রি ২০, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

ঠাকুরগাঁওয়ে ইউপি নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

Byঅনুসন্ধান বার্তা

মার্চ ১২, ২০২১
0 0
Read Time:7 Minute, 17 Second

আপেল মাহমুদ, রুহিয়া (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি :

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি’র না যাওয়ার ঘোষণায় রুহিয়ার তৃণমূলে দেখা যাচ্ছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলাধীন রুহিয়া থানা পাঁচটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। পাঁচ ইউনিয়ন বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীসহ নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলে এমন আভাস পাওয়া যায়।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া ইউনিয়নের আবু কালাম নামে বিএনপির এক কর্মী বলেন, এই সরকারের আমলে দলের কাজ করতে গেলেই হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। একমাত্র নির্বাচনের সময় মানুষের কাছে গিয়ে সরকারের অপকর্ম গুলো তুলে ধারার সুযোগ পাওয়া যায়। গত পৌর নির্বাচনেও তফসিল ঘোষণার পর থেকে বেশ কিছুদিন ভোটারের দ্বারে দ্বারে গিয়ে কথা বলতে পেরেছি।

ইউপি নির্বাচন ঘিরে তৃণমূলের মানুষের মধ্যে সরকার বিরোধী জনমত গড়ে তোলার সুযোগ ছিল। নির্বাচন বর্জন করায় আমরা সেই সুযোগও হারালাম। রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে দীর্ঘদিন মাঠ সাজিয়েছেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনছারুল হক (সাবেক আহবায়ক রুহিয়া থানা বিএনপি)। গত ১৪ জানুয়ারি দলের প্রার্থী নির্বাচন করে তাঁর হাতে ধানের শীষ তুলে দেন রুহিয়া থানা বিএনপির নেতা-কর্মীরা। কিন্তু এখন ইউপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণায় বিপাকে পড়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে আনছারুল হক বলেন, দীর্ঘদিন রাজনীতি করে আসছি। এলাকার মানুষের সাথে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। তাদের অনুরোধেই এবার নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়ে মাঠে নেমেছি। এখন নিজেকে গুটিয়ে নেওয়ার অবকাশ নেই। স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনে অংশ নিতে দলের কাছে আমি অনুমতি চাইব। অনুমতি না দিলে প্রয়োজনে দল থেকে পদত্যাগ করে নির্বাচনে অংশ নেবে।

রাজাগাঁও ইউনিয়নে বিএনপির দলীয় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছিলেন ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সদস্য ও রুহিয়া থানা বিএনপির সহ-সভাপতি রিপন চেšধুরী।

তিনি বলেন, নির্বাচনে অংশ নিলে মাঠের নেতা-কর্মীরা সক্রিয় থাকেন। দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঠে চাঙা রাখার জন্য স্বতন্ত্র নির্বাচন করলে বাধা হওয়া উচিত না। মামলা-হামলার ভয় নিয়ে তো সব সময় থাকা যাবে না। ভয় থেকে বাহির হতে হবে।

তবে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার একেবারেই বিপক্ষে রুহিয়া থানা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আব্দুল মালেক মানিক। তিনি বলেন, গতবার রুহিয়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছিলেন। এখন কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু হচ্ছে না। নির্বাচন ব্যবস্থা ধংস করে দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচন গুলোতে এটা প্রমাণিত হয়েছে। এই নির্বাচন কমিশন কোনো নির্বাচনই নিরপেক্ষ, অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত করবার যোগ্যতা রাখেনা। তিনি দলের সিদ্ধান্তের সাথে সহমত পোষণ করে নির্বাচনে অংশ নেবে না।

ঢোলারহাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার। তিনি ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির স্থানীয় সরকার ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এবং রুহিয়া থানা বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতির পদে রয়েছেন।

আব্দুল জব্বার বলেন, আগের দিনে একটা কথা ছিলো, ‘আমার ভোট আমি দিবো, যাকে খুশি তাকে দিবো’। তারপর আসলো আমার ভোট আমি দিবো জেনে শুনে বুঝে দিবো। এখন আওয়ামী পিরিয়ডে চলে এসেছে আমার ভোট আমি দিবো প্রতিপক্ষের ভোটটিও আমি দিবো। তাই দলের সিদ্ধান্ত মেনে এই প্রহসনের নির্বাচনে অংশ নেবেন না।

গতবারে আখানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে অংশ নিয়েছিলেন আলহাজ্ব হাফেজ মোঃ মজিবুর রহমান। তিনি বলেছেন, আমি যেহেতু দলের একটি পদে আছি সেই ক্ষেত্রে দলের বাহিরে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ নাই। দল যদি বাধ্য বাধকতা না করে দেয়, যেমন কেউ যদি ব্যক্তিগত ভাবে নির্বাচন করতে চায় করবে। তবে আমি মাঠে ছিলাম আছি থাকবো।

ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান বলেন, ক্ষমতাসীন দলের হামলা, মামলা ও হয়রানি মোকাবিলা করে ইউপি নির্বাচনে জয়ী হওয়ার মতো অনেক নেতা-কর্মী দলে আছেন। কিন্তু দলের সিদ্ধান্ত মানতে হবে। স্বতন্ত্রভাবে কেউ নির্বাচন করতে পারবেন কি না, সে ব্যাপারে এখনো কোনো স্পষ্ট নির্দেশনা পাননি বলে তিনি জানান।

গত ২৮ ফেরুয়ারি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চ্যুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিএনপির পক্ষ থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তটি জানানো হয়।

গত ৩ মার্চ প্রথম ধাপে ৩৭১ ইউনিয়ন পরিষদে ভোটের তফসিল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার। ১৮ মার্চ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। ভোট হবে আগামী ১১ এপ্রিল। চেয়ারম্যান পদে দলীয় আর সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য পদে নির্দলীয় প্রতীকে ভোট হবে। তবে এই ধাপে ঠাকুরগাঁওয়ের কোনো ইউনিয়নে বিএনপির কোন প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন না।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!