• শুক্র. ফেব্রু ২৬, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

শাজাহানপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১২

Byঅনুসন্ধান বার্তা

সেপ্টে ২৯, ২০২০
0 0
Read Time:4 Minute, 31 Second

এম.এ রাশেদ, অনুসন্ধান বার্তা :
বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার আমরুল ইউনিয়নের বড়নগর গ্রামে ডিস লাইনের ভাড়া আদায় করাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারী সহ ১২ জন আহত হয়েছেন। এসময় ডিস ব্যবসায়ীর ৬টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

আহতরা হলেন বড়নগর মধ্যপাড়া গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে ইমদাদুল হক (৫০), তার সৎ মা আকলিমা বেগম (৬৫), একই গ্রামের আব্দুল জোব্বারের ছেলে মতিউর রহমান (৫০), তার ছোট ভাই তোতা মিয়া (৩৫), তোতা মিয়া’র স্ত্রী সাবিনা (২৮), মৃত হাবিবুর রহমানের স্ত্রী নূর জাহান বেওয়া (৬৫)।

অপরদিকে ডিস অফিসের কর্মচারিদের মধ্যে আহত হয়েছেন রিহিমাবাদ গ্রামের ফরিদ উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৩৫), বৃ-কুষ্টিয়া গ্রামের বুলবুল আহমেদের ছেলে সৈকত (২৬), একই গ্রামের মহসিন আলীর ছেলে কামাল (৪০), বিষ্ণপুর গ্রামের চান মিয়ার ছেলে মিলন (২৫), নারচি গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে পাভেল (২৫), বড়পাথার গ্রামের মনছের আলীর ছেলে এনামুল (২৬)।

আহতদের মধ্যে ইমদাদুল হক (৫০), আকলিমা বেগম (৬৫), তোতা মিয়া (৩৫), জাহাঙ্গীর আলম (৩৫), সৈকত (২৬) ও পাভেলকে (২৫) আহত অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় জানাগেছে, ‘বি-ব্লক ক্যাবল নেটওয়ার্ক’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান বড়নগর গ্রামের বাড়ি বাড়ি ডিস সংযোগ দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত ব্যবসা করে আসছে। বিগত ১২ দিন যাবত ওই গ্রামে ডিস লাইনের ছবি দেখা যাচ্ছিল না। এবিষয়টি একাধিকবার জানানোর পর কোন কর্ণপাত করেননি ডিল লাইনের কর্তৃপক্ষ।

এদিকে ডিস বিল আদায়কারী বিষ্ণপুর গ্রামের ছাইফুল ইসলামের ছেলে সাজু মিয়া কয়েকদিন ধরে বকেয়া বিল আদায়ের জন্য গ্রাহকদের তাগাদা দিয়ে আসছিলেন।
গত রোববার বেলা ৩টার দিকে ডিস বিল আদায়কারী সাজু মিয়া বড়নগর গ্রামের গিয়ে গ্রাহকদের কাছে বকেয়া বিল পরিশোধের কথা বললে গ্রাহকরা তার সাথে কথাকাটাকাটি করেন। বাকবিতন্ডার সংবাদ পেয়ে বিষয়টি সুরাহার জন্য ডিস অফিসের ১০-১২ জন কর্মচারি ৬টি মোটর সাইকেলযোগে ঘটনাস্থলে পৌঁছালে হামলাকারি মনে করে স্থানীয়রা তাদের উপর চড়াও হয়।

এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হলে নারীসহ ১২ জন আহত হয়। এদিকে অবস্থা বেগতিক দেখে ডিস অফিসের কর্মচারিরা পালিয়ে গেলেও বিক্ষুদ্ধ গ্রামবাসী মোটরসাইকেলগুলো ভাংচুর করে।

আমরুল ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান অটল জানান, ডিস লাইনের সামান্য বিষয় নিয়ে এত বড় আকারে নিয়ে যাওয়া ঠিক হয়নি। ঘটনাটি আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে ফেলা উচিত ছিল।

এবিষয়ে শাজাহানপুর থানার এসআই আব্দুর রহমান জানান, ডিস লাইনের ত্রুটি এবং বকেয়া বিল নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে এবং ডিস অফিসের কর্মচারিদের ৬টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে। ভাংচুরকৃত মোটরসাইকেলগুলো উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। এবিষয়ে অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!