• মঙ্গল. এপ্রি ২০, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

বগুড়ার ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ : শিগগিরই মিলবে বিশ্ব রেকর্ডস্ এর স্বীকৃতি

Byঅনুসন্ধান বার্তা

মার্চ ৯, ২০২১
0 0
Read Time:5 Minute, 43 Second

স্টাফ রিপোর্টার, অনুসন্ধানবার্তা :

বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের মালেন্দ্রা গ্রামে ১০০ বিঘা জায়গা জুড়ে ধানের গাছ দিয়ে তৈরি ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ নামের চিত্রকর্মটি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস্-এর নিয়ম মেনেই করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির স্থানীয় দুই প্রতিনিধি।

মঙ্গলবার (৯ মার্চ) দুপুরে দুই ঘন্টারও বেশি সময় ধরে পুরো চিত্রকর্মটি পর্যবেক্ষণের পর ওই দুই প্রতিনিধি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন।

পরিদর্শন দলের এক সদস্য বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, তারা পুরো চিত্রকর্মটি দেখেছেন। গিনেজ বুক থেকে যেভাবে বলা হয়েছিল সেভাবেই এটি করা হয়েছে। তাছাড়া এখানে কৃত্রিম কোন কিছুই নেই। এমনকি জায়গার পরিমাপটিও সঠিক রয়েছে।

প্রতিনিধি দলের আরেক সদস্য বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এমদাদুল হক চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, তারা খুব শিগগিরই তাদের রিপোর্ট গিনেজ বুক কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাবেন।

তবে আয়োজকদের আশা, প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্টের ভিত্তিতে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনেই গিনেজ বুক হয়তো এটিকে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র হিসেবে ঘোষণা করবে।

গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস্ এর দায়িত্বপ্রাপ্ত ওই দুই প্রতিনিধি শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু নামে ফসলের মাঠে বৃহৎ চিত্রকর্মটি দেখতে মঙ্গলবার (৯ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের বালেন্দা গ্রামে যান।

এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন, বৃহৎ ওই চিত্রকর্ম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গঠিত ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদ’ এর আহবায়ক আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ বাহাউদ্দিন নাসিম, সদস্য সচিব ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের কর্ণধার মোস্তাফিজুর রহমান, প্রধান সমন্বয়ক সাংবাদিক ফয়জুল সিদ্দিকী, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি সমীর চন্দ ও বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ হাবিবর রহমান সহ দলীয় নেতৃবৃন্দ।

আয়োজকরা জানান, গিনেজ বুক কর্তৃপক্ষ নিয়োজিত স্থানীয় দুই প্রতিনিধি বগুড়ার শেরপুর উপজেলা ভূমি অফিসের এক সার্ভেয়ারকে নিয়ে সাড়ে ১২টা থেকে দুই ঘন্টারও বেশি সময় ধরে পুরো এলাকা পরিদর্শন করেন এবং খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে সবকিছু পর্যবেক্ষণ করেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে গত বছর দেশজুড়ে জাকজমকপূর্ণ নানা আয়োজনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু করোনা দুর্যোগের কারণে যথাযোগ্য মর্যাদায় সেটি করা সম্ভব হয়নি। যে কারণে কৃষি প্রধান সবুজ বাংলার বিশাল ক্যানভাসকে ব্যবহার করে প্রথমবারের মতো বঙ্গবন্ধুর চিত্রকর্ম আঁকার পরিকল্পনা করা হয়।

এজন্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ বাহাউদ্দিন নাসিমের নেতৃত্বে ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদ’ নামে একটি কমিটি গঠন করা হয়।

তবে বিশাল ওই কর্মযজ্ঞটিতে অর্থায়নের জন্য এগিয়ে আসে দেশে কৃষি খাতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার।

এরপর স্থান হিসেবে বেছে নেওয়া হয় বেছে নেওয়া হয় বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের বালেন্দ্রা গ্রামের ১০০ বিঘা ফসলি জমি। বিদেশ থেকে আনা বেগুনী রঙের ধানবীজ থেকে উৎপন্ন চারা গিনেজ বুক কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী গত ১ ফেব্রুয়ারি রোপন শুরু হয় এবং চলে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

আয়োজকদের আশা ১০০ বিঘা বা ১২ লাখ ৯২ হাজার বর্গফুট জায়গা জুড়ে ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ নামে এই চিত্রকর্মটি হবে বিশ্বের সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র। যা খুব শিগগিরই গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকডর্স্ এ ঠাঁই করে নিবে। এর আগে ২০১৯ সালে চীনের ফসলের মাঠে তৈরি করা চিত্রকর্মের আয়তন ছিল ৮ লাখ ৫৫ হাজার ৭৮৬ বর্গফুট।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!