• বুধ. এপ্রি ২১, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

বগুড়ার শেরপুরে ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ পেলো ১৬৩ ভূমিহীন পরিবার

Byonushondhanbarta

জানু ২৩, ২০২১
0 0
Read Time:6 Minute, 30 Second

শুভ কুন্ডু, শেরপুর (বগুড়া) থেকে :

দু’চোখে স্বপ্ন ছিল নিজ নামীয় জায়গায় ছোট্ট একটি পাকা বাড়িতে বসবাস করার। স্বপ্নটি অনেকটা অবাস্তব ছিল অসহায় জীবনে। পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করতে হতো অন্যের আশ্রয়ে বা পথ-ঘাটের ধারে। সেসব ভূমিহীন অসহায় মানুষগুলো এখন তাদের হৃদয়ের গভীরে লুকানো স্বপ্ন বর্তমানে বাস্তবে পরিণত হওয়ায় তাদের চোখে মুখে ও হৃদয়ে আনন্দধারা বিরাজ করছে। খুঁজে পেয়েছেন তাদের কাঙ্খিত স্বপ্নের ঠিকানা। খুশিতে আত্মহারা হয়ে কেঁদে ফেললেন ঘর ও জায়গা প্রাপ্ত অনেক ভূমিহীন পরিবারের সদস্যরা।

ভূমিহীন ও গৃহহীন অসহায় খায়রুজ্জামান, নজরুল ইসলাম, আজেনা খাতুন, আরজিনা খাতুন, হামিদা বেগম, রোকেয়া খাতুন, জোসনা, আয়ন বিবি, হায়দার আলী, রবি কর্মকার আনন্দে আত্মহারা হয়ে জানান, সন্তান-স্বামী নিয়ে একটি ঝুঁপড়ি ঘরে অন্যের আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে থেকে কোনো রকমে দিনাতিপাত করে আসছিল। দিনমজুরি করে যেখানে নুন আনতে পানতা ফুরায়, সেখানে পাকাঘর তৈরি করা শুধু মাত্র স্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই নয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের মতো একজন গরিবদের খবর নিয়ে ঘর তৈরি করে দিয়ে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দেয়ায় এটা আমার জীবনে সেরা উপহার পেলাম। স্বপ্নেও ভাবতে পারিনি পাঁকা বাড়িতে ঘুমাতে পারবো। তবে এই ঘরে নামাজ পড়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করব, তিনি যেন অনন্তকাল বেঁচে থাকেন, আর এভাবে আমাদেরমতো গরীব ও অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়ে কাজ করতে পারেন।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মুজিববর্ষ উপলক্ষে দেশের ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলোকে জমি ও গৃহ প্রদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের আগে থেকেই স্ব-স্ব জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।
এরই ধারাবাহিকতায় বগুড়ার শেরপুরে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল মালেক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিয়াকত আলী সেখ, শেরপুর পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুস সাত্তার সহ সরকারি বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তাবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধি গণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ঘোষণার পরপরই বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের হাতে ২ শতক জমিসহ বাড়ির দলিল, নামজারি খতিয়ান, রেকর্ড সংশোধনী ফি জমা দানের ডিসিআর, সার্টিফিকেট, দাখিলা ইত্যাদি তুলে দেওয়া হয়।

জানাগেছে, শেরপুর উপজেলার কুসুম্বি ইউনিয়নে ২০টি, গাড়িদহ ইউনিয়নে ৬টি, খামারকান্দি ইউনিয়নে ৩টি, খানপুর ইউনিয়নে ২২টি, মির্জাপুর ইউনিয়নে ১০টি, বিলাশপুর ইউনিয়নে ২৮টি, ভবানীপুর ইউনিয়নে ৪১টি, সীমাবাড়ি ইউনিয়নে ৩৩টিসহ মোট ১৬৩টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারকে এই দিন তাদের ঘর ও জমির কাগজপত্র প্রদান করা হয়।

ভূমিহীন অসহায় পরিবারের জন্য প্রতিটি ঘর নির্মাণে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। এই টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে দুটি করে বেডরুম, একটি টয়লেট, একটি স্টোর রুম কাম রান্না ঘর। চারদিকে ইটের দেয়াল এবং ওপরে সবুজ রঙের টিনের ছাদ রয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) শামসুন্নাহার শিউলী বলেন, ঘরগুলো নির্মাণ কাজের শুরু থেকে স্থানীয় এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মজিবুর রহমান মজনু নির্মান কাজ বাস্তবায়ন করতে সহযোগিতা করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজেই প্রত্যেকটি ঘর উপস্থিত থেকে তদারকি করছেন। কাজে যেন কোনো রকমের অনিয়ম না হয় সেই দিকে তিনি সর্বদাই বিশেষ নজর রেখেছেন। আজ এই ঘরগুলো হস্তান্তর করা হলো।

শেরপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিন বলেন, মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে সরকারি খাস জমির ওপর গৃহনির্মাণ করে জমির দলিলসহ ১৬৩ টি উপকারভোগীর কাছে আজ হস্তান্তর করা হলো।

এ প্রসঙ্গে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী শেখ বলেন, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সারা দেশের ন্যায় শেরপুর উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য পাকা বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। উপজেলায় ১৬৩টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে আজ আনুষ্ঠানিকভাবে এসব ঘরের চাবি ও জমির দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!