• রবি. মার্চ ৭, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

বগুড়ার শেরপুরে পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই : সিআইডির অভিযানে গ্রেফতার ১

Byঅনুসন্ধান বার্তা

ডিসে ২, ২০২০
0 0
Read Time:5 Minute, 12 Second

স্টাফ রিপোর্টার, অনুসন্ধান বার্তা :

বগুড়ার সিআইডি পুলিশ বিজ্ঞান ভিত্তিক তদন্ত ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে দীর্ঘদিনের ক্লুলেস মামলার সকল তথ্য উদঘাটনসহ মামলার প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করেছে।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) ভোরে সিআইডি ঢাকা জেলা এবং ডিএমপি’র মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ঢাকা উদ্যানের প্রধান গেটের সামনে থেকে আপরাধ কাজে ব্যবহৃত উদ্ধারকৃত ঔ মাইক্রোবাসের চালক মামলার তদন্তে প্রধান অভিযুক্ত আসামী মোঃ ইসমাইল হোসেন (৪০) গ্রেফতার করে বগুড়ার সিআইডি পুলিশ।

সে ভোলা জেলার বোরহান উদ্দিন থানাধীন সাচড়া বাথানবাড়ী গ্রামের মৃত বাচ্চু মীরের ছেলে।

জানাগেছে, ২০১৪ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর দুপরে বগুড়া জেলার শেরপুর থানাধীন শেরপুর ইসলামী ব্যাংক হাইওয়ে শাখা হতে মামলার বাদী আব্দুল মজিদসহ তার ভাই ও শ্বাশুরী নগদ ১ লাখ ৩৯ হাজার টাকা উত্তোলন করে অটোরিক্সা যোগে নিজ বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা হয়।

কিছুদুর যাওয়ার পর একই থানাধীন মির্জাপুর নামক স্থানে বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে পৌঁছালে পেছন দিক থেকে একটি সাদা রং এর মাইক্রোবাস তাদের অটোরিক্সার গতিরোধ করে। মাইক্রোবাস থেকে ৩ জন বের হয়ে নিজেদেরকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে বাদীকে চড়-থাপ্পর মেরে তার হাত থেকে টাকার ব্যাগ কেড়ে নিয়ে মাইক্রোবাস যোগে ঢাকার দিকে দ্রুত গতিতে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় আব্দুল মজিদ বাদী হয়ে আজ্ঞাতনামা আসামী করে শেরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- (১৫ তারিখ: ১৮/৯/২০১৪ খি: ধারা ৩৪১/৩২৩/১৭০/৩৭৯ পেনাল কোড দায়ের করে)।

তবে শেরপুর থানা পুলিশ ঘটনায় ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটি পরিত্যাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করলেও মামলার মুল তথ্য উদঘাটন বা কাউকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় না।

একপর্যায়ে শেরপুর থানা পুলিশ কাউকে অভিযুক্ত না করেই বিজ্ঞ আদালতে চুড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করে। বিজ্ঞ আদালত ঐ পুলিশ রিপোর্ট গ্রহরাজ না করে মামলার অধিকতর তদন্তের জন্য সিআইডি বগুড়াকে নির্দেশ প্রদান করে।

এমতাবস্থায় ২০১৬ সালের ২৮ সেপ্টেম্বও বগুড়ার সিআইডি ওই মামলার অধিকতর তদন্তভার গ্রহন করে মামলার মুল তথ্য উদঘাটনসহ জড়িত আসামীদের গ্রেফতার করার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা শুরু করে।

তবে ইতিমধ্যে বদলী জনিত কারনে একাধিক তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তন হলেও হাল ছাড়েনি পরবর্তী দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা। বর্তমান তদন্তকারী অফিসার সিআইডি বগুড়া জেলার এসআই মোঃ শামীম হায়দার ২০২০ সালের ১০ সেপ্টেম্বর ওই মামলার তদন্তভার গ্রহন করে বিজ্ঞান ভিত্তিক তদন্ত শুরু করেন।

বিশেষ পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ কাউছার সিকদার, সিআইডি বগুড়া জেলার দিক-নির্দেশনায় সর্বোচ্চ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই শামীম হায়দার আজ ২ ডিসেম্বও (বুধবার) ভোররাত্রে সিআইডি ঢাকা জেলা এবং ডিএমপি’র মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ঢাকা উদ্যানের প্রধান গেটের সামনে থেকে আপরাধ কাজে ব্যবহৃত উদ্ধারকৃত ঔ মাইক্রোবাসের চালক মামলার তদন্তে প্রধান অভিযুক্ত আসামী ইসমাইল হোসেনকে (৪০) গ্রেফতার করে।

বগুড়া সিআইডির এএসপি রতন ইকবাল এতথ্য নিশ্চিত করে জানান, বুধবার বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গ্রেফতারকৃত আসামী ইসমাইল হোসেন মামলার গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাদি প্রকাশ করে ফৌ: কা: বি: ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!