• মঙ্গল. এপ্রি ২০, ২০২১

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

বগুড়ায় নিজ দলের নেতাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা : ছাত্রলীগ নেতা রউফকে বহিষ্কার!

Byঅনুসন্ধান বার্তা

মার্চ ১৬, ২০২১
0 0
Read Time:4 Minute, 56 Second

বগুড়া প্রতিনিধি :

বগুড়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নিজ দলের নেতাকে ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনায় সরকারী আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফকে বহিস্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) রাতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, শৃঙ্খলা পরিপস্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় বগুড়া সরকারী আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে আব্দুর রউফকে বহিস্কার করা হয়েছে।

জানাগেছে, গত বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) দুপুরে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলায় ছাত্রলীগের একটি সমাবেশে যাওয়ার পথে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে বগুড়া শহরের সাতমাথা এলাকায় ওইদিন রাতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়।

এই সংঘর্ষে দুই গ্রুপের অন্তত ৫ জন আহত হন। আহতদের সবাইকে চিকিৎসার জন্য শজিমেকে ভর্তি করানো হয়। তবে আহতদের মধ্যে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাকবির ইসলাম খানের অবস্থা সবচেয়ে গুরুতর ছিল।

তবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকবির ইসলামের মৃত্যুর একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। সেখানে মৃত্যুর আগে ছাত্রলীগ নেতা তাকবির তার উপর হামলার ঘটনা বর্ণনা করেন। তখন তিনি বলেন, আব্দুর রউফ ও তার লোকজন সাতমাথা এলাকায় প্রকাশ্যে তাকে কুপিয়ে আহত করেছে।

এদিকে এই ঘটনার ৩ দিন পর ১৩ মার্চ দুই গ্রুপের পক্ষ থেকে বগুড়া সদর থানায় পাল্টাপাল্টি পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়। জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাকবীর ইসলাম খানের মা আফরোজা ইসলাম বাদী হয়ে সরকারী আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ধুনট উপজেলার বিলচাপড়ী গ্রামের ফারাইজুল হকের ছেলে আব্দুর রউফসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরও ৩০ থেকে ৩৫ জনের নামে মামলা করেন।

অপরদিকে আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সোহাগ হাসান বাদী হয়ে তাকবির ইসলাম খানসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরও ২০ থেকে ২৫ অজ্ঞাতনামার বিরুদ্ধে মামলা করেন।

অপরদিকে তাকবীর ইসলামের মা আফরোজা ইসলাম করা মামলায় ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রউফ (২৮), জাহিদ হাসান (২৬), আনোয়ার হোসেন (২৭), মো. তারেক (২৭), বিধান চন্দ্র মোহন্ত (২৭), নিশাদ (২১) ও আরমানের (২২) নাম উল্লেখ করে বগুড়া সদর থানায় মামলা করেন।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) দুপুরে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি সমাবেশে যাওয়ার পথে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে পথিমধ্যেই ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। পরে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বগুড়া শহরের সাতমাথা এলাকায় ওইদিন রাতে আবারো ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। এসময় ছুরিকাঘাতের ঘটনাও ঘটে।

এ সংঘর্ষে দুই গ্রুপের অন্তত ৫ জন আহত হন। আহতদের সবাইকে চিকিৎসার জন্য শজিমেকে ভর্তি করানো হয়। তবে আহতদের মধ্যে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাকবির ইসলাম খানের অবস্থা সবচেয়ে গুরুতর ছিল। অবশেষে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছাত্রলীগ নেতা তাকবির ইসলাম খানের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে বগুড়া সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির বলেন, আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার চেষ্টা করা হচ্ছে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
error: Content is protected !!